পার্কসার্কাস ময়দানে মিলন উৎসব ২০২১ সূচনা করলেন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়

পার্কসার্কাস ময়দানে মিলন  উৎসব ২০২১  সূচনা করলেন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়
Image source - সংবাদদাতা

কলকাতার পার্কসার্কাস ময়দানে বৈচিত্রের মাঝে মহামিলনের মিলন উৎসব শুভ সূচনা হলো সোমবার।  পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন বিত্ত নিগমের চেয়ারম্যান ডাঃ পি বি সেলিমের  নেতৃত্বে মিলন উৎসব বিগত বছরগুলোর মতোই এবছরও আবেগ-আনন্দ-উচ্ছাস আর ভালবাসায় সামিল হলেন হাজার হাজার মানুষ।

সর্ব শ্রেণির মানুষের কল্যাণে এই উৎসবের পরিপূর্ণ পরিকল্পনা ও সার্থক আয়োজন দেখে মুগ্ধ উপস্থিত সকলেই।  ডাঃ পি বি সেলিম-এর ঐকান্তিক ও সফল প্রচেষ্টায় মিলন উৎসব বাংলার মননের আকাশে ইতিপূর্বেই বিশেষ দাগ কেটেছে। এবছর পার্কসার্কাস ময়দানে মিলন উৎসব ডাক দিল ঘরে ঘরে ঐকতান আর সম্প্রীতির বার্তা পৌঁছে যাক।

সোমবার মিলন উৎসবের  আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন রাজ্য সরকারের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। এদিন মূল মঞ্চে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর।  "উদার আকাশ মিলন উৎসব সংখ্যা ২০২১" প্রকাশিত হয়। উদার আকাশ পত্রিকার সম্পাদক ফারুক আহমেদ পত্রিকার বিশেষ সংখ্যাটি চেয়ারম্যানের ডাঃ পিবি সেলিম সাহেবের হাতে তুলে দেন। উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন বিত্ত নিগমের জেনারেল ম্যানেজার শামসুর রহমান। এদিন উদার আকাশ প্রকাশন থেকে প্রকাশিত শবনম সালেহা রচিত " বিশ্বনবী মুহাম্মদ স." এবং সেখ আব্দুর রহমান রচিত "ইসলাম কী বলে" এই গ্রন্থ দুটি আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন ডা: পি বি সেলিম।

এবছর মিলন উৎসবের থিম নির্ধারন করা হয় "ঐকতান।" গতবছর থিম ছিল "আমাদের সংবিধান আমাদের শক্তি।" বাংলার কল্যাণে অন্যতম দক্ষ প্রশাসনিক আধিকারিক ডা. পি বি সালিম সাহেবের আন্তরিক প্রচেষ্টায় গত বছরের মতো এবছরেও মিলন উৎসব-এর বিশেষ আকর্ষণে আছে কেরিয়ার স্টল, মেডিকেল প্যাভিলিয়নে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শিবির, ফুড স্টল, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক প্রদর্শনী, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, জব মেলা, হস্তশিল্পের স্টল, কিডস জোন, শিক্ষা সচেতনতার জন্য বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টল, চাকরি জন্য কেরিয়ার কাউন্সিলিং, বাংলার বিভিন্ন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিজস্ব হস্তশিল্প। প্রতিদিন চলবে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়ও থাকছে বিভিন্ন বিষয়ের ২০০ এর উপর স্টল।

পার্ক সার্কাস ময়দানে বৈচিত্রের মাঝে মহামিলনের উৎসবের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মন্ত্রী ও কলকাতা পৌরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। বিশেষ অতিথি হয়ে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের আরও দুই মন্ত্রী জাভেদ আহমেদ খান ও গিয়াস উদ্দিন মোল্লা। উপস্থিত ছিলেন সাংসদ নাদিমুল হক ও প্রাক্তন সাংসদ সাংবাদিক আহমেদ হাসান ইমরান। উপস্থিত ছিলেন গোলাম আলী আনসারী, আই.এ.এস. সচিব, সংখ্যালঘু বিষয়ক ও মাদ্রাসা শিক্ষা দপ্তর, পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

মেডিকেল প্যাভিলিয়নে পরিষেবা দান করছে   উদার আকাশ, ন্যাশানাল মেডিকেল কলেজ, আই কেয়ার এন্ড রিসার্চ সেন্টার, কার্ডিওলজিস্ট নারায়ণ হেল্থ, ইউনিসেফ, ট্রাইবেকা কেয়ার প্রভৃতি। মিলন উৎসবে খ্রিস্টান, মুসলিম, বৌদ্ধ, জৈন প্রভৃতি সম্প্রদায়ের লোকেরা আলাদা আলাদা দিনে নিজেদের সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানও করবেন। সারা মেলা জুড়ে পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের সুবিধাভোগীদের তৈরি নানা ধরনের অলঙ্কার, পোশাক প্রদর্শন ও পিঠে-পুলি বিক্রি হবে বিভিন্ন স্টলে। এই পাঁচ দিনেই মিলন উৎসব জমে উঠবে এবং মানুষের উৎসহ চোখে পড়বে।

বিভিন্ন দিনে প্রেরণাদায়ী বক্তব্য রাখবেন বিশিষ্টজনেরা। আল আমীন মিশনের সম্পাদক এম নুরুল ইসলাম থেকে কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্য ও ভারতীয় বিজ্ঞান কংগ্রেসের চিকিৎসা বিজ্ঞান শাখার সভাপতি বিজ্ঞানী ড. গৌতম পাল।

পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের চেয়ারম্যান ও সিএমডি দফতরের প্রধান সচিব ডাঃ পি বি সেলিম জানিয়েছেন, নিগমের কাছ থেকে ক্ষুদ্র ও মেয়াদি ঋণ নিয়ে যারা ব্যবসা করে স্বনির্ভর হয়েছেন, তাঁরা এখানে পণ্য সম্ভার সাজিয়ে তুলবেন। তাঁদের পণ্য কিনতে মানুষ স্টলগুলিতে হাজির হবেন। বিক্রিবাটাও ভাল হবে। নিগমের মেলা করার মূল লক্ষ্য মানুষের কাছে এই সব প্রান্তিক মানুষের সৃষ্টিকর্ম তুলে ধরা এবং তার বিপণনের ব্যবস্থা করা। এবছরও কোভিড বিধি মেনেই জনসমাগম হচ্ছে এবং ক্রেতা আসছেন যা আমাদের উৎসাহিত করছে।

উদার আকাশ পত্রিকা ও সামাজিক সংগঠনের উদ্যোগে মিলন উৎসবে মেডিকেল প্যাভিলিয়নে ১ থেকে ৫ ফেব্রুয়ারি স্বাস্থ্য পরীক্ষার শিবিরে থাকবেন রাজ্যের নাম করা বিভিন্ন বিভাগের ডাক্তারবাবুরা। তাদের সুচিকিৎসায় উপকৃত হবেন বহু সাধারণ মানুষ। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-এর অনুপ্রেরণায় পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম এর উদ্যোগে ১ ফ্রেব্রুয়ারি থেকে ৫ ফ্রেব্রুয়ারি, ২০২১ পর্যন্ত পার্ক সার্কাস ময়দানে আয়োজিত হচ্ছে এই “মিলন উৎসব ২০২১”। পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিজস্ব কুটির শিল্প, খাবারদাবার এবং সংস্কৃতির মেলবন্ধন ঘটছে এই মিলন উৎসবে।

মিলন উৎসবে বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে থাকছে ফ্রি কেরিয়ার কাউন্সেলিং এবং বেকারদের চাকরি দেওয়ার সুপরামর্শ। মিলন উৎসব উদ্বোধনের পর স্বাগত ভাষণের পর মঞ্চে স্কলারশিপ, ঋণ, প্রভৃতি প্রদান করা হয়।

মিলন উৎসবের সমস্ত আয়োজন ও প্রস্তুতির মূল কান্ডারী ডাঃ পি. বি. সেলিম আরও জানান, বিশেষ আকর্ষণে থাকছে জব মেলা, হস্তশিল্প, কেরিয়ার স্টল, চাকরি-সংক্রান্ত কাউন্সিলিং, থিম প্যাভিলিয়ান, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং প্রতিযোগিতা, স্বাস্থ্য পরীক্ষা শিবির, কিড জোন, ফুড জোন প্রভৃতি। উৎসব চলবে বেলা ১১ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত। এদিন অতিথিদের মূল্যবান বক্তব্য সাধারণ মানুষের মনে দাগ কাটে।


সংবাদদাতা : মহিউদ্দীন আহমেদ, কলকাতা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য