বিষণ্ণ মন সজীব করার উপায়

বিষণ্ণ মন সজীব করার উপায়
Image source

সপ্তাহের শেষে ঘর গুছাতে গেলে দেখা যায় অনেক অপ্রয়োজনীয় জিনিস বা ময়লা পড়ে থাকে ঘরের কোণায় কোণায়। কিংবা বাসা পরিবর্তনের সময়ও এরকম অনেক জিনিস দেখা যায়।

যেসব ফেলে দিয়ে পরিচ্ছন্ন একটা বাসা আমরা পাই। আবার পড়ার টেবিল বা অফিস টেবিলের ড্রয়ারগুলোতেও এরকম অনেক অপ্রয়োজনীয় জিনিস জমে। সপ্তাহ বা মাস শেষে চেক করতে গেলে দেখা যায় যে অনেক অপ্রয়োজনীয় কাগজ বা ময়লায় ভর্তি সেসব।

আমাদের জীবনেও এরকম হাজার কাজে ব্যস্ত হয়ে মননে মগজে অনেক ক্লেদ নর্দমা জমা হয়। যেগুলোর কারণে অনেক সময় আমাদের মন বিষণ্ণ থাকে। সেগুলো দূর করার জন্য এরকম পরিচ্ছন্নতা অভিযান দরকার হয়। সেটা কীভাবে? জেনে নিন:

• দূরে কোথাও বেড়াতে যাওয়া নীলাকাশ, বিস্তির্ণ জলরাশি, গহীন জঙ্গল, অবারিত প্র্রকৃতির কাছে যেতে পারিড. সফিকুল ইসলাম


• কোনো ধর্মীয় আয়োজনে অংশ নিতে পারি। যার যার ধর্মের বিভিন্ন আলোচনা সভা হয়, প্রার্থনা সভা হয় সেখানে যেতে পারি


• বিনোদন জগত যেমন গান শোনা, মুভি দেখা, নাটক দেখা, থিয়েটার পাড়ায় যাওয়া এরকম আরও নানান কিছু হতে পারে

• পছন্দের বই পড়া, কবিসভায় বসা, সাহিত্যের আড্ডায় মাতা, বুদ্ধিবৃত্তিক আলোচনায় যোগ দেওয়া যায়


• সামাজিক অনুষ্ঠানে যাওয়া, বিভিন্ন ক্লাবে যোগদান করা


• পুরোনো বন্ধুর সঙ্গে দেখা করা, যোগাযোগ করে আড্ডা দেওয়া


• যোগব্যয়ামের দলে, হাঁটা ক্লাবে, জিমে বা যে কোনো ক্রীড়া ক্লাবে যুক্ত হওয়া

• পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কিছু করা, সমাজ বা রাষ্ট্রের কল্যাণে কিছু করা, হাসপাতালে রোগী দেখতে যাওয়া, জানাজায় বা শেষকৃত্যে যাওয়া ।


এসব করলে কী হয়? মনন ও মগজে যে ক্লেদ জমা হয় দিনের পর দিন মাসের পর মাস, সেসব দূর হয়। নতুন করে প্রাণ সঞ্চার হয়, ভাবনায় নতুন মাত্রা যোগ হয়, জীবনযাত্রায় পরিবর্তন আসে, ফিলোসফিতে গভীরতা আসে, ভারসাম্য আসে সব কিছুতে আর চলার পথ সুগম হয়, আগের চেয়ে সহজ আর মসৃণ হয়।

লেখক -ড. সফিকুল ইসলাম, সরকারি কর্মকর্তা, উপসচিব, অর্থ মন্ত্রণালয়।


সুত্র : দেশেবিদেশে

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য