‘বাংলা বললেই বাঙালি হয় না’, নাম না করে মোদীকে নিশানা মমতার

‘বাংলা বললেই বাঙালি হয় না’, নাম না করে মোদীকে নিশানা মমতার
Image source

৭১তম মন কি বাত অনুষ্ঠানে বাংলায় কবিতা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ঋষি অরবিন্দ থেকে গুরু নানককে স্মরণ করেন তিনি। মোদীর এই ‘বাংলাপ্রীতি’কে তীব্র কটাক্ষ করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বঙ্গবাসীর মন পেতে বাংলা ভাষা শিখছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী মোদী। রবিবারের ‘মন কী বাত’-এ ঋষি অরবিন্দের দর্শন এবং বিস্মৃতপ্রায় কবি মনোমোহন বসুর কবিতার পংক্তি উল্লেখ করে তা বেশ স্পষ্ট করেছেন তিনি। মঙ্গলবার নবান্নের সাংবাদিক বৈঠকে ঘুরিয়ে এই প্রসঙ্গ তুললেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বললেন, ”টেলিপ্রম্পটারের দৌলতে এখন এ সবই সম্ভব। গুজরাতি হরফে বাংলা লিখে উচ্চারণ করা কোনও ব্যাপারই নয়।”

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতায় সময় পোডিয়ানে প্রায়শই টেলিপ্রম্পটারের ‘উপস্থিতি’ থাকে। তা ছাড়া, কোনও রাজ্যে সভা করতে গেলে বক্তৃতার সময় সাধারণত স্থানীয় ভাষায় কয়েকটি বাক্য বলে থাকেন প্রধানমন্ত্রী।

এই প্রবণতা প্রসঙ্গেও মোদীকে ঠুকে মমতা বলেন, ‘‘বাংলা বললেই বাঙালি হয় না।

আমি অন্তত ১৫টি ভাষা জানি। হিন্দি জানি, উর্দু জানি, গোর্খা জানি,নেপালি জানি। তাই বলে এটা নিয়ে আমি কখনও গর্ব করি না। বরং আমি গর্ব করি, যদি তাঁদের কথা আমি একটু বলতে পারি। কেউ করবেন না কি চ্যালেঞ্জ? যে কোনও রাজ্যের, যে কোনও ভাষা। যে ভাষাগুলি আমি আপনাদের বললাম। হ্যাঁ, আমি একটি-আধটু জানি। তাই কেউ বাংলা বললেই তা নিয়ে মাতামাতি করার কিছু নেই।”

রাজনৈতিক মহলের মত, তিনি ও তাঁর দল যে বাংলার সংস্কৃতির সঙ্গে সম্পৃক্ত এবং আষ্টেপৃষ্ঠে বাধা পড়ে আছেন, তা বোঝাতেই ওইদিন মন কি বাত-এ বারবার একের পর এক বাংলার মনীষীদের উদ্ধৃত করে ভোট বৈরতণী পারের চেষ্টা। ভোটের আগে বিজেপি যাতে এর থেকে ফায়দা তুলতে না পারে তাই এদিন সুর চড়ালেন মমতা। তার সাফ কথা, ”বিনা যুদ্ধে এক ইঞ্চি জমি বাংলার মানুষ ছাড়বে না।”


সুত্র : কলকাতা২৪x৭

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য