‘মায়ের হাত দুটো খুব শক্ত করে ধরে ছিলাম’ মাকে হারিয়ে ভেঙে পড়েছেন বাবুল

‘মায়ের হাত দুটো খুব শক্ত করে ধরে ছিলাম’ মাকে হারিয়ে ভেঙে পড়েছেন বাবুল
Image source

করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল আসানসোলের সাংসদ ও গায়ক বাবুল সুপ্রিয়র মা সুমিত্রা বড়ালের। বাবুল নিজে একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। লকডাউনের সনয়ে তাঁর বাবা মা সাংসদের কাছেই ছিলেন। দিন কয়েক আগেই তাঁর বাবা ও মায়ের করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসে। দুজনকেই গুরুগ্রামের মেদান্ত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সাংসদের বাবা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেও, ফেরা হল না বাবুলের মায় সুমিত্রা দেবীর।

হাসপাতালের তরফ থেকে জানানো হয়েছে দুদিন আগেই করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট আসে তাঁর। কিন্তু মাল্টি অর্গান ফেলিওরের খবর মেলে। বুধবার রাত ১০ নাগাদ প্রয়াণ হয় তাঁর। মায়ের মৃত্যুর খবর ট্যুইট করে জানান বাবুল। সঙ্গে ছিল এক আবেগ ঘন পোস্ট।

নিজের পোস্টে তিনি জানান, বাবা মাকে কাছছাড়া করেননি এক মুহুর্তও। লকডাউনের প্রতিটা সময় তাঁদের সঙ্গে কাটিয়েছেন তিনি। কিন্তু কিছু পাওয়ার পরে কিছু হারাতেও হয়। তবে এতবড় মাশুল তাঁকে দিতে হবে, তা ভাবেননি বাবুল।

বাবুল জানান, তাঁর মায়ের বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। আরও ১০ বছর খুব সহজেই তিনি থাকতে পারতেন। কিন্তু করোন এসে ছিনিয়ে নিয়ে গেল তাঁকে।

পোস্টে তিনি আরও লেখেন, মাকে ছাড়া জীবন সম্পর্কে আমার কোনোও ধারণা নেই..কাল সূর্য উঠলে নতুন এক পৃথিবীকে দেখবো.. মায়ের হাত ধরেই তো ছোট থেকে সব চিনেছি..এবার..?

বাবুল জানান, বড় তাড়াতাড়ি ও অসময়ে চলে গেলেন তাঁর মা। সারা জীবন বাবুল সুপ্রিয়কে সমর্থন করে এসেছেন সুমিত্রা বড়াল। এই নিয়ে বেশ কটাক্ষের মধ্যেও পড়তে হয়েছে বাবুলকে বলে জানিয়েছে তিনি নিজেই। এই সম্পর্কের কি পরিণতি এরকমই হওয়া ছিল, প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।


সুত্র : কলকাতা২৪x৭

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য