ব্রাজিলে মৃত হল অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিন ট্রায়ালের স্বেচ্ছাসেবকের

ব্রাজিলে মৃত হল অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিন ট্রায়ালের স্বেচ্ছাসেবকের
Image source - theconversation

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্ভাব্য করোনা ভাইরাস টিকা নিয়ে নতুন উদ্বেগ। ব্রাজিলে মৃত্যু হল হিউম্যান ট্রায়ালে অংশগ্রহণকারী এক স্বেচ্ছাসেবকের। রয়টার্স সূত্রে এমনটাই খবর।

বিশ্বে কিছুতেই থামছে না করোনার মৃত্যুমিছিল। এখনও পর্যন্ত এই মারণ রোগের চিকিৎসায় মেলেনি কোনও দাওয়াই। তবে করোনার প্রতিষেধক বা টিকা আবিষ্কারে বিশ্বজুড়ে চলছে আপ্রাণ চেষ্টা। বিজ্ঞানীদের দিকে রোগমুক্তির আশায় চাতকের মতো তাকিয়ে আছে গোটা পৃথিবী। এহেন পরিস্থিতিতে সম্ভাব্য প্রতিষেধক কতটা সুরক্ষিত হবে তা নিয়ে ফের প্রশ্ন উঠেছে।

বুধবার ব্রাজিলের স্বাস্থ্যসংস্থা অ্যানভিসা মৃত্যুর কথা জানালেও এটা সাফ করে দেয় যে ভ্যাকসিনটির ট্রায়াল বন্ধ করা হবে না। তবে, পরীক্ষা চলাকালীন মৃত স্বেচ্ছাসেবককে সত্যিকারের টিকা দেওয়া হয়েছিল না ‘প্লাসিব’ অর্থাৎ সত্যিকারের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল তা খোলসা করেনি সংস্থাটি।

আরও পড়ুন : পুজোয় বোনাসের সঙ্গে কর্মচারীদের বিরাট উপহার দিল মোদী সরকার, দারুণ সুযোগ

এই বিষয়ে সিএনএন–কে দেওয়া এক বিবৃতিতে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় জানিয়েছে যে কোভিড–১৯ ভ্যাকসিন গ্রুপ বা কন্ট্রোল গ্রুপে থাকা স্বেচ্ছাসেবকদের শারীরিক অবস্থার উপর পৃথক পৃথকভাবে স্বাধীনভাবে নজর রাখা হয়। এই ঘটনায় ট্রায়ালের নিরাপত্তা নিয়ে কোনও উদ্বেগের বিষয় নেই। তাছাড়া, ব্রাজিল সরকারও পরীক্ষা চালিয়ে যেতে আগ্রহী।

এদিকে, ‘ফেডারেল ইউনিভার্সিটি অফ সাও পাওলো’র তরফে পৃথকভাবে জানানো হয়েছে, মৃত স্বেচ্ছাসেবক ব্রাজিলের বাসিন্দা। তবে তিনি ওই দেশের কোন অংশে থাকতেন, সে বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে খোলসা করে কিছু বলা হয়নি। ফেডারেল ইউনিভার্সিটি অফ সাও পাওলো ব্রাজিলে অ্যাস্ট্রোজেনেকা ও অক্সফোর্ডের টিকার তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল চালানোর ক্ষেত্রে সাহায্য করছে।

রয়টার্স সূত্রে খবর, যাঁদের উপর এখন করোনা টিকার পরীক্ষা–নিরীক্ষা করা হচ্ছে, অর্থাৎ কোভিড–১৯ গ্রুপ, মৃত ব্যক্তি সেই গোষ্ঠীর অংশ হলে তৎক্ষণাৎ ট্রায়াল বন্ধ রাখা হত। সংবাদসংস্থা ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, মৃত ব্যক্তির শরীরে সম্ভাব্য করোনা টিকা প্রয়োগ করা হয়নি। অন্যদিকে অ্যাস্ট্রোজেনেকার তরফে বলা হয়েছে, গোপনীয়তা এবং ক্লিনিকাল ট্রায়ালের নিয়মের জন্য কোনও নির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে সংস্থার তরফে কোনও মন্তব্য করা হবে না।

লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ


সুত্র : আজকাল

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য