করোনা আবহে দুর্গাপুজো নিয়ে বিশেষ সাবধানতা রাজ্যের, পুজোর সমস্ত তথ্য পাঠাতে হবে নবান্নে।

করোনা আবহে দুর্গাপুজো নিয়ে বিশেষ সাবধানতা রাজ্যের, পুজোর সমস্ত তথ্য পাঠাতে হবে নবান্নে।
Image source - sangbadsafar

করোনা পরিস্থিতিতে দুর্গাপুজো নিয়ে বিশেষ সতর্ক হতে চায় নবান্ন। সংক্রমণ রোধে, ভিড় নিয়ন্ত্রনে কী ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা ভাবছে বিভিন্ন পুজো কমিটি, ক্লাব কর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানাতে হবে প্রতি থানার পুলিশকে। আলোচনায় উঠে আসা তথ্য পাঠাতে হবে এসপি (সুপারিন্টেনডেন্ট অফ পুলিশ) এবং সিপি (কমিশনার অফ পুলিশ) কে।

করোনা অতিমারির মধ্যেই দুর্গাপুজো। বিশেষ প্রস্তুতি নিয়ে তৈরি থাকতে চায় নবান্ন। সংক্রমণ রোধ এবং ভিড় নিয়ন্ত্রনের কাজে প্রসাশনের ভূমিকা যতটা গুরুত্বপূর্ণ, ততটাই গুরুত্বপূর্ণ পুজো কমিটি গুলির পরিকল্পনা ও সহযোগিতা। ২৫শে সেপ্টেম্বর নেতাজি ইনডোরে পুজো কমিটি গুলির সঙ্গে বৈঠক করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তার আগে প্রয়োজনীয় হোমওয়ার্ক সেরে ফেলতে চায় প্রশাসন। সেই মত নবান্ন থেকে নির্দেশ গেছে রাজ্যের প্রতি থানায়। বলা হয়েছে প্রতি ক্লাবের পুজো কমিটির সঙ্গে কথা বলে তাদের পরিকল্পনা জানতে হবে। থানার ওসি অথবা আইসি এলাকার পুজো কমিটির সঙ্গে আলোচনা করবেন।

স্যানিটাজেশনের কী ব্যবস্থা থাকবে? দর্শনার্থীদের মধ্যে সামাজিক দুরত্ত কীভাবে বজায় রাখা যাবে? সংক্রমণ রোধে সচেতনতা বার্তা কীভাবে প্রচার করা হবে? ভিড় না করে পুষ্পাঞ্জলি পর্ব কীভাবে সম্পন্ন হবে? এই সব প্রশ্নের বিষয় পুলিশকে অবগত হতে হবে।

আলোচনায় সংগৃহীত তথ্য ওসি এবং আইসি পুলিশ কর্তারা পুলিশ সুপার অথবা পুলিশ কমিশনারকে পাঠাবেন। করোনা সংক্রমণ এড়াতে ইতিমধ্যেই খোলা মণ্ডপের পক্ষে সওয়াল করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

ফোরাম ফর দুর্গোৎসব এবং কলকাতা দুর্গাপুজো কমিটির আশ্বাস স্যানিটাইজার গেট থেকে শুরু করে থার্মাল স্ক্রীনিং সতর্কতামূলক সব ব্যবস্থাই তারা রাখবেন। 

বাচ্চা, বয়স্ক এবং মহিলাদের জন্য আলাদা কী ব্যবস্থা রাখা যায়, সিঁদুর খেলার ঐতিহ্য অক্ষুণ্ণ রেখে কীভাবে তা সম্পন্ন করা যায়। এইসব বিষয় নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে ২৫শে সেপ্টেম্বর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য