প্রবল শীতের সঙ্গে লড়তে প্রস্তুত হচ্ছে ভারতীয় সেনা, লাদাখে কোনোভাবেই এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে নারাজ জওয়ানরা।

 

প্রবল শীতের সঙ্গে লড়তে প্রস্তুত হচ্ছে ভারতীয় সেনা, লাদাখে কোনোভাবেই এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে নারাজ জওয়ানরা।
Image source - sangbadtimes

সীমান্তে যুদ্ধের আবহাওয়া। চীনের একের পর এক উস্কানি, সীমান্তে সৈন্য সমাবেশ, ভুটান ও অন্যান্য সীমান্তে তৈরি হচ্ছে হেলিপ্যাড ও পাকাপক্ত ঘাঁটি। অপরদিকে ভারতীয় সেনার পাল্টা সংঘাতের হুঙ্কার। চীনের অনুপ্রবেশ অথবা এক ইঞ্চি জমি দখলের চেষ্টা বরদাস্ত করবে না ভারতীয় সেনাবাহিনী। লাদাখে ১৬০০০ ফুট উচ্চতায় শীত যুদ্ধের জন্য তৈরি ভারতীয় জওয়ানরা।

কী ভাবে নেওয়া হচ্ছে এই যুদ্ধকালীন প্রস্তুতি। লাদাখে যদি শীত যুদ্ধ যদি দীর্ঘদিন ধরে চলে তার জন্য় ভারতীয় সেনা একদম তৈরি এবং সেই মতো রসদ পাঠানো হচ্ছে। লাদাখের বিভিন্ন দুর্গম এলাকায় সেনার সংখ্যাও বাড়ানো হচ্ছে। এছাড়াও পাঠানো হচ্ছে জ্বালানি যেটা ওই এলাকায় অত্যন্ত জরুরি একটি সরঞ্জাম।

কারন এরপর যখন বরফ পড়তে শুরু করবে, তখন বিভিন্ন যোগাযোগের রাস্তা বন্ধ হয়ে যাবে। সেই কারনে জ্বালানি এখনই পাঠিয়ে রাখা হচ্ছে। লাদাখে পাহাড়ের মাথায় তৈরি হচ্ছে জ্বালানির ডিপো। দেশের সবথেকে উচু জ্বালানি তেলের ডিপো তৈরি হয়েছে এখানে। বিভিন্ন জায়গা থেকে তেলের ট্যাঙ্কারের মাধ্যমে তেল এখানে পৌঁছানোর পর মাটির নিচে থাকা একটি বিশাল ট্যাঙ্কে তা সংরক্ষণ করা হয়।

কথায় আছে খালি পেটে যুদ্ধ জেতা মুস্কিল। তুষারপাতের সময় যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধের ফলে সেনাদের কাছে রেশন পৌঁছান প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে। তাই এখনই সেনাদের খাওয়া এবং রেশনের সম্পূর্ণ ব্যবস্থাও করা হয়ে গেছে। অন্যান্য খাবার সহ, শুকনো খাবার, দুধ প্রভৃতি পাঠাবার বন্দোবস্ত ইতিমধ্যেই নেওয়া হয়েছে। যার ফলে দীর্ঘদিন যুদ্ধ হলেও যাতে যথেষ্ট খাবার তাদের জন্য মজুত থাকে।

সারি সারি রসদের ট্রাক ছুটছে লাদাখের অভিমুখে। কোনো ট্রাকে যাচ্ছে খাবার এবং জল, কোনোটাতে যাচ্ছে শীতের পোশাক, আবার কোনো ট্রাকে খোদ সেনাদের কেও পাঠানো হচ্ছে। যত দিন যাচ্ছে রোজই লাদাখ সীমান্তে প্রকৃত নিয়ন্ত্রন রেখায় সেনার সংখ্যা আরও বাড়ানো হচ্ছে।

চীনের রক্তচক্ষুর সামনে এই মুহূর্তে ভারতের সবথেকে বড় সমস্যা কী? কার্গিলের সময় যুদ্ধ ক্ষেত্র কাঁপিয়ে ছিল বোফোর্স কামান। প্রকৃত নিয়ন্ত্রনরেখার এই সংঘাতেও ভারতীয় সেনার বড় ভরসা এই বোফর্স। সেই বোফর্স তোপ কিন্তু এল ও সি তে একেবারে তৈরি। সেক্ষেত্রে এই তোপ সরাসরি চীনের আক্রমনকে প্রতিহত করতে মুখ্য ভূমিকা গ্রহণ করবে।

শীতের লাদাখে সেনাদের থাকার জন্য বিশেষ তাবুও তৈরি রয়েছে। পাহাড়ের বিশেষ উচ্চতায় থাকার উপযুক্ত এই তাবু -২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা পর্যন্ত সহ্য করতে পারে অনায়াসে। একটি তাবুতে ৭ থেকে ৮ জন সেনা জওয়ান থাকতে পারবে এবং তাবুতে থাকবে বিশেষ হিটারের ব্যবস্থা।

সোলার প্যানেলের সাহায্যে চালিত বিশেষ আলোর ব্যবস্থাও আছে তাবুতে। এরকমই বহু নতুন নতুন প্রযুক্তি ভারতীয় সেনার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। যাতে কোনোরকমের সমস্যা তাদের না হয়। সব মিলিয়ে বলা যেতে পারে যেকোনো পরিস্থিতির জন্য সেনা রয়েছে প্রস্তুত।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য