কোন্নগরে নিখোঁজ নিট পরীক্ষার্থীর দেহ উদ্ধার, বান্ধবীর সঙ্গে মেসেজে মৃত্যু নিয়ে কথা।

কোন্নগরে নিখোঁজ নিট পরীক্ষার্থীর দেহ উদ্ধার, বান্ধবীর সঙ্গে মেসেজে মৃত্যু নিয়ে কথা।
Image source - abopatrika

কোন্নগরে নিখোঁজ নিট পরীক্ষার্থী অভিক মণ্ডলের দেহ ভেসে উঠল ভদ্রকালী গঙ্গার ঘাটে। পরীক্ষার অ্যাডমিট আনতে গিয়ে আর ফেরেনি সে। মেধাবী ছাত্রের দেহ উদ্ধারের পরেই শোকে পাথর গোটা এলাকা। ইতিমধ্যেই দেহটিকে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।

সাঁতরাগাছির এক বান্ধবীর মেসেজে মৃত্যু নিয়ে কিছু কথা হয়েছিল বলে দাবি মৃতের ভাইয়ের। অভিযোগ দায়ের করেছে পরিবার। মেডিকেল প্রবেশিকা পরীক্ষা নিট (NEET)-এ বসার কথা ছিল মেধাবী অভিকের। মঙ্গলবার অ্যাডমিট কার্ড আনতে বেরিয়েছিল সে। স্থানীয় সাইবার ক‍্যাফে খোঁজ নিয়ে জানা যায় রাত সাড়ে আটটা নাগাদ অ‍্যাডমিট নিয়ে সে বেরিয়ে গিয়েছিল। আর ফেরেনি সে, তিনদিনের মাথায় মিলল দেহ। শান্তশিষ্ট ছেলের এই পরিনতিতে হতবাক পাড়া প্রতিবেশীরা।

তাদের এক প্রতিবেশী রীতা দেবী জানিয়েছেন মঙ্গলবার থেকেই নিখোঁজ ছিল অভিক। এরপর তার সমস্ত বন্ধু বান্ধবের বাড়ি খোঁজ খবর নেওয়া হয়। থানায় করা হয় নিখোঁজ ডায়েরি। কিন্তু কোনোভাবেই মেলেনি হদিস।

আত্মহত্যা নাকি মৃত্যুর অন্য কোনো কারন? অভিকের মোবাইল থেকে এক সন্দেহভাজন বান্ধবীর খোঁজ মিলেছে বলে দাবি পরিবারের। ব্যক্তিগত চ্যাটে মৃত্যু নিয়েও কথাবার্তা হয়েছিল বলে দাবি মৃতের ভাইয়ের।

মৃতের ভাই অলোক মণ্ডল জানিয়েছে যে ওই বান্ধবীর বাড়ি সাঁতরাগাছি এলাকায়। এই ঘটনার পর তাকে ফোন করা হলে এই ঘটনার ব্যাপার না জানার  কথা বলে এবং এরপর ফোন সুইচ অফ করে দেয়। তার সঙ্গে আর যোগাযোগ সম্ভব হয় না। ফেসবুক চ্যাটের মাধ্যমে মৃত অভিক এবং তার বান্ধবীর মৃত্যু নিয়ে কথা হয়েছিল বলে জানায় অলোক।

মৃতের বাবা সুভাষ মণ্ডল কলকাতা পুলিশের কর্মী। ছেলের অকস্মাৎ মৃত্যুতে অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি। ছেলেকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়া হয়েছে বলে মনে করছে পরিবার। তদন্তে লোকাল থানার পুলিশ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য