পশ্চিমবঙ্গ সহ ৭ রাজ্যে অতিসক্রিয় জঙ্গিগোষ্ঠী আইসিস, রাজ্যসভায় জানালেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

পশ্চিমবঙ্গ সহ ৭ রাজ্যে অতিসক্রিয় জঙ্গিগোষ্ঠী আইসিস, রাজ্যসভায় জানালেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক
Image source - sangbadekalavya

ভারতের সাত রাজ্যে পশ্চিমবঙ্গ সহ অতিসক্রিয় ক্রিয়াকলাপ রয়েছে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট বা সংক্ষেপে আইসিস। রাজ্যসভায় এমনটাই জানালেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী জি কৃষ্ণা রেড্ডি। পশ্চিমবঙ্গ, কর্ণাটক, কেরালা, তেলেঙ্গানা, মহারাষ্ট্র, রাজস্থান ও বিহারে এই সাত রাজ্যের নাম প্রকাশ করা হয়েছে কেন্দ্রের তরফ থেকে।

এক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গের নাম উঠে আসার কারন আমরা জেনে নেবো। পশ্চিমবঙ্গে যদি সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের নাম উঠে আসে সেখানে এই মুহূর্তে সবথেকে সক্রিয় সংগঠনের নাম হল "জামাত-উল-মুজাহিদিন (জে এম বি)"। প্রথম থেকে অবশ্য "ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন" ছিল সবথেকে বড়ো সংগঠন। যা ভারতবর্ষের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে ছিল এবং এর প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন ইয়াসিন ভাটকাল।

ইয়াসিন ভাটকাল যদিও এখন জেলে রয়েছেন। কিন্তু তার দলের যে স্লিপার সেলকে এখন কাজে লাগাচ্ছে আইসিস। স্লিপার সেলের অর্থ হল সংগঠনের কোনো নাশকতার কাজ ততক্ষণ পর্যন্ত হয় না যতক্ষণ না তাদের কেউ নেতৃত্ব প্রদান করে। সহজ ভাষায় কোনো জঙ্গি নেতার নির্দেশ ছাড়া দল ঘুমন্ত অবস্থায় থাকে।

একসময় কর্ণাটক এবং কেরালা "ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন" এর শক্ত ঘাঁটি ছিল। কিন্তু ভাটকাল গ্রেপ্তার হওয়ার পরে তার দল স্লিপার সেলে পরিনত হয় এবং "ইসলামিক স্টেট" ধীরে ধীরে এর উপর প্রভাব বিস্তার করতে থাকে। 

পশ্চিমবঙ্গকে এই তালিকায় রাখার অন্যতম কারন হচ্ছে ২০১৭ সালে গয়াতে যে বৌদ্ধলামা বিস্ফোরণ ঘটেছিল, দলাই লামা সফরের আগে। সেক্ষেত্রে "জামাত-উল-মুজাহিদিন" এর প্রত্যক্ষ মদত ছিল তাই নয়, যে বিস্ফোরক সেখানে ব্যবহার হয়েছিল তার সরঞ্জাম সরবরাহ হয়েছিল পশ্চিমবঙ্গ থেকেই। বেশ কিছু জঙ্গি ছিল এ রাজ্যের বাসিন্দা।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী জি কে রেড্ডি জানিয়েছেন "ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি বা এন আই এ তেলেঙ্গানা, কেরালা, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্ণাটক এবং তামিলনাড়ু আইসিস সংগঠন সম্পর্কিত ১৭ টি মামলা দায়ের করেছে। মামলা সম্পর্কিত ১২২ জন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে ভারতের এই সন্ত্রাসবিরোধী সংস্থা"

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য